Author Topic: স্মার্টফোনে ৬৫ ওয়াটের চার্জার  (Read 15 times)

sabuj

  • Administrator
  • Newbie
  • *****
  • Posts: 42
    • View Profile
রিয়েলমি ৭ প্রো স্মার্টফোনে ৬৫ ওয়াটের চার্জার


বিশ্বের দ্রুত বর্ধনশীল স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি সম্প্রতি বাংলাদেশে তাদের নতুন হ্যান্ডসেট রিয়েলমি ৭ প্রো উন্মোচন করেছে। আকর্ষণীয় মূল্যে রিয়েলমির নতুন স্টাইলিশ ও শক্তিশালী পারফরমেন্সের এ ফোনটি ব্যবহারকারীকে দিবে ফোন ব্যবহারের চমৎকার অভিজ্ঞতা।

স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ৬৫ ওয়াট সুপার ডার্ট চার্জ সুবিধা। এ ফিচারের ফলে ফোনটি মাত্র ৩৪ মিনিটে পুরো চার্জ দেয়া যাবে, যা রিয়েলমি ৭ প্রোকে দেশের সেরা চার্জিং ফোনে পরিণত করেছে।

মোবাইল গেমিং, মোবাইল ফটোগ্রাফি কিংবা মোবাইলে অফিসের কাজ করা যেটাই হোক না কেনো, আমাদের মধ্যে অনেকেরই অভিজ্ঞতা হয়েছে ঠিক প্রয়োজনের মুহূর্তে ফোনের চার্জ শেষ হয়ে যাওয়ার। এছাড়াও, প্রায়ই অনেককে দেখা যায় পাওয়ার ব্যাংক কিংবা চার্জার অথবা অতিরিক্ত আরেকটি ফোন ব্যবহার করতে, কারণ যদি তার ফোনে চার্জ শেষ হয়ে যায় এ আশঙ্কায়। সেক্ষেত্রে, রিয়েলমি ৭ প্রো ব্যবহারে চার্জের জন্য হয়তো ব্যবহারকারীর আর অন্য কোনো ডিভাইস ব্যবহারের প্রয়োজন হবে না।

মিরর সিলভার এবং মিরর ব্লু এ দুটি রঙে অবিশ্বাস্য দামে মাত্র ২৭,৯৯০ টাকায় ৪,৫০০ মিলি অ্যাম্পিয়ারের শক্তিশালী ব্যাটারির সাথে উন্নত ফ্ল্যাশ চার্জিং প্রযুক্তির রিয়েলমির নতুন এই স্মার্টফোনটি বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। ডিভাইসটি মাত্র ১২ মিনিটে ৫০ শতাংশ চার্জ হবে। গরম হওয়া প্রতিরোধেও বিশেষ প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে ডিভাইসটিতে। গেম খেলার সময়ও চার্জ দেয়া যাবে ডিভাইসটি। গেমিং-এর সময় মাত্র ৩০ মিনিটে এ ফোনটি ৪৩ শতাংশ চার্জ হবে। এছাড়াও, মাত্র তিন মিনিটে ফোনটি চার্জ হবে ১৩ শতাংশ, যা দিয়ে তিন রাউন্ড পাবজি (১.২২ ঘণ্টা) খেলা যাবে, আড়াই ঘন্টা ইউটিউব দেখা যাবে, ২ ঘণ্টা ইনস্টাগ্রাম ব্রাউজ করা যাবে এবং ৪ দিন ফোনটি স্ট্যান্ডবাই মোডে রাখা যাবে। রিয়েলমি ৭ প্রোতে অ্যালগরিদম প্রযুক্তিতে ৯৮ শতাংশ আলট্রা এফিসিয়েন্সি নিশ্চিত করা হয়েছে। টাইপ-সি ইউএসবি কেবলে ১০ভোল্ট ৬.৫ অ্যাম্পিয়ারের চার্জ নেয়ার পাশাপাশি রিয়েলমি ৭ প্রো ১৮ ওয়াট পিডি/কিউসি চার্জও সমর্থন করবে।

ফোনটিতে রয়েছে কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ। এ সেটআপে মূল ক্যামেরা হিসেবে রয়েছে ৬৪ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা হাই রেজ্যুলেশনের ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা, যার অ্যাপারচার এফ/১.৮। ৩২ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড অ্যাঙ্গেল সেলফি ক্যামেয়ার রয়েছে ৮৫ ডিগ্রি ফিল্ড অব ভিউ এবং সেকেন্ডারি ক্যামেরা হিসেবে সাথে আছে ৮ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স। সাথে আছে ২ মেগাপিক্সেলের ব্ল্যাক অ্যান্ড হোয়াইট পোর্ট্রেট ক্যামেরা এবং ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো লেন্স। প্রতিদিনের মুহূর্তগুলোকে ক্যামেরাবন্দী করতে রিয়েলমি ৭ প্রোর ক্যামেরায় রয়েছে স্টারি মোড, সুপার নাইটস্কেপ, প্যানোরামিক ভিউ, টাইমল্যাপ্স, পোর্ট্রেট মোড, এইচডিআর, আল্ট্রা ওয়াইড মোড, আল্ট্রা ম্যাক্রো মোড, এআই সিন রিকগনিশন, এআই বিউটি, ফিল্টার, ক্রোমা বুস্ট, স্লো মোশন এবং বোকেহ ইফেক্ট কন্ট্রোল ফিচার। ভিডিও মোডে রয়েছে স্ট্যাবিলাইজেশন সহ ফোর-কে/৩০এফপিএস ভিডিও রেকর্ডিং সুবিধা। এবং রয়েছে ১০৮০পি/১২০এফপিএস, ৭২০পি/২৪০এফপিএস স্লো-মো রেকর্ডিং ফিচার।

ডিভাইসটির কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৭২০জি প্রসেসর সাথে ৮ ন্যানোমিটারের অক্টাকোর সিপিইউ, ও অ্যাড্রিনো ৬১৮ জিপিইউর সাথে ২.৩ গিগাহার্টজ গতিতে কাজ করার সুযোগ করে দিবে। এর ফলে, ফোনটির পারফরমেন্স হবে প্রত্যাশার চেয়েও ভালো। বিনোদনে ভিন্ন মাত্রা দিতে ফোনটিতে রয়েছে ৬.৪ ইঞ্চির সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে। মুভি দেখা, গেম খেলা ও অনলাইন স্ট্রিমিং উপভোগ করা যাবে ফোনটির ফুল এফএইচডি প্লাস ডিসপ্লেতে।

স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ১২৮ জিবি ইউএফএস ২.১ স্টোরেজ। এর ফলে, এ ডিভাইস ব্যবহারকারীদের স্টোরেজ নিয়ে ভাবতে হবে না। সুপার স্পিড নিশ্চিতে ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৮ জিবি এলপিডিডিআর৪এক্স র‍্যাম। চমৎকার অডিও এক্সপেরিয়েন্সে ফোনটিতে রয়েছে ডলবি অ্যাটমোস ডুয়াল স্টেরিও স্পিকার। রিয়েলমি ৭ প্রোতে ব্যবহার করা হয়েছে রিয়েলমি ইউআই ভিত্তিক অ্যান্ড্রয়েড ১০।

রিয়েলমি ৭ প্রো ফোনটির ওজন মাত্র ১৮২ গ্রাম। আর এর স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও ৯০.৮ শতাংশ। নন্দনতাত্ত্বিক লাইট এফেক্টের রিয়েলমি ৭ প্রোর ডিজাইন করা হয়েছে প্রকৃতি থেকে মিরর স্পেসের অনুপ্রেরণায়।

ফোন ব্যবহারে যেকোন সময়ই ঘটতে পারে দুর্ঘটনা। আর এ দুর্ঘটনা থেকে সুরক্ষায় রিয়েলমি ৭ প্রোতে রয়েছে তিন স্তরের ওয়াটার প্রুফিং টেকনোলজি। ডিভাইসটিতে রয়েছে ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সুবিধাও। অসাধারণ পারফরমেন্সের জন্য রিয়েলমি ৭ প্রো প্রথম স্মার্টফোন হিসেবে টিইউভি রেইনল্যান্ড স্মার্টফোন রিলায়াবিল্যাটি ভেরিফিকেশন টেস্টে উত্তীর্ণ হয়েছে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানিয়েছে রিয়েলমি।


Source: https://www.kalerkantho.com/online/corporatecorner/2020/10/19/967177